কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কটিয়াদীতে তিন লবণ ব্যবসায়ীকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা


 মো. রফিকুল হায়দার টিটু, স্টাফ রিপোর্টার, কটিয়াদী | ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:৩৭ | কটিয়াদী 


কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে লবণের মূল্য বৃদ্ধির গুজবে দোকানগুলোতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন ক্রেতারা। মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) সকাল থেকে মোবাইল ফোনে ফোনে এ খবর ছড়িয়ে পড়লে গ্রামের ছোট ছোট বাজার থেকে শুরু করে পৌর সদরে অবস্থিত কটিয়াদী বাজারে লবণ কিনতে সাধারণ মানুষের ভীড় লেগে যায়।

বাড়িফেরা বেশিরভাগ মানুষের হাতে এক বা একাধিক লবণের প্যাকেট এই গুজবের পালে আরো হাওয়া দেয়। বিশেষ করে কৃষকদেরকে উদ্বিগ্ন ও ছুটা ছুটি করতে দেখা যায়। বেশিরভাগ কৃষকের বাড়িতেই এক-দুইটা গরু রয়েছে। লবণের ক্রয়মূল্য সীমার বাইরে চলে গেলে নিজের ও গরুর প্রয়োজন মেটাতে হিমশিম খেতে হবে।

লবণের মূল্য বৃদ্ধির গুজবটি প্রশাসনের নজরে আসলে সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. আকতারুন নেছার নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে তিন ব্যবসায়ীকে মোট ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এর মধ্যে কটিয়াদী বাজারের লোকনাথ ভান্ডারের মালিক কানু লাল সাহাকে অবৈধ ভাবে লবণ মজুদ ও অতিরিক্ত মূল্যে লবণ বিক্রির অপরাধে ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও মজুদকৃত ১৪ বস্তা লবণ জব্দ করা হয়। এছাড়া আচমিতা ইউনিয়নের বানিয়াগ্রাম বাজারে মুহিত ট্রেডার্সের মালিক মাহাবুবকে অতিরিক্ত মূল্যে লবণ বিক্রির অপরাধে ১০ হাজার টাকা এবং কাঞ্চন ট্রেডার্সের মালিক কাঞ্চন মিয়াকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের এই অভিযানের বিষয়টি জানতে পেয়ে অনেক দোকানি তাদের দোকান বন্ধ করে পালিয়ে যায়। অভিযান রাত ৮টা পর্যন্ত চলে। অভিযানে কটিয়াদী মডেল থানার ওসি এমএ জলিল উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. আকতারুন নেছা বলেন, ১৯৫৬ সনের নিত্যপণ্য নিয়ন্ত্রণ আইনে অবৈধভাবে লবণ মজুদ ও অতিরিক্ত মূল্যে বিক্রির অপরাধে এ জরিমানা করা হয়।

তিনি আরও বলেন, দেশে লবণের কোন ঘাটতি নেই। দেশে লবণের চাহিদার তুলনায় ৩-৪ গুণ বেশি মজুদ আছে। গুজবে কান দিবেন না। এ ধরণের গুজবে কেউ মুনাফা হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করলে প্রশাসনকে অবহিত করার আহবান জানান।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর