কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিকেলে ১৩ ডেঙ্গু রোগী


 বাজিতপুর সংবাদদাতা | ২৮ জুলাই ২০১৯, রবিবার, ৮:৪৮ | স্বাস্থ্য 


বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ১৩ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন। বিভিন্ন জেলা ও বিভাগীয় শহর থেকে বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত ও ছাত্রসহ ১৩ জন এডিস মশায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালটিতে ভর্তি হয়েছেন।

গত কয়েকদিনে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিভিন্ন বয়সের এসব ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন।

হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোববার (২৮ জুলাই) পর্যন্ত মোট ১৩ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন।

ভর্তিকৃতরা হলেন, নরসিংদী জেলার বেলাবো উপজেলার বিন্নাবাইদ গ্রামের বকুল মিয়ার ছেলে বাইজিদ মিয়া (১৯), বাজিতপুর উপজেলার সরারচর গ্রামের অরুণ বনিকের স্ত্রী রিনা রাণী বনিক (৫৮), কুলিয়ারচর উপজেলার আগরপুর গ্রামের মোবারক মিয়ার স্ত্রী সাবিনা আক্তার (২৪), মনোহরদী উপজেলার গাংকৈল গ্রামের বকুল মিয়ার স্ত্রী ফরিদা আক্তার (৪০), বাচ্চু মিয়ার স্ত্রী রোকেয়া বেগম (৫০), গোবরিয়া গ্রামের আঃ হাসিমের ছেলে দ্বীন ইসলাম (৩০), মধ্য ভুনা গ্রামের  মুসা ভূইয়ার ছেলে নাহিদ ভুইয়া (২১), বাগবেড় গ্রামের আসিক মিয়ার ছেলে নূর মোহাম্মদ (১৮), শ্রীনগর গ্রামের জহির মিয়ার ছেলে আরমান মিয়া (২০), পূর্ব ভাগলপুর গ্রামের টিটু মিয়ার ছেলে ইসলাম উদ্দিন (২০), নারান্দি গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে জুয়েল মিয়া (২৪), কটিয়াদী পৌর শহরের সমীর সাহার ছেলে শিমুল সাহা (২৩) এবং দিগাম্বরদী গ্রামের আল আমিন (২৪)।

জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ডেপুটি ডিরেক্টর প্রফেসর ডা. মোহাম্মদ খালেকুল ইসলাম জানান, ডেঙ্গু রোগীদের জন্য আলাদা ওয়ার্ডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মেডিকেল কলেজ সহ আশপাশের এলাকার মধ্যে মশা নিধনের জন্য স্প্রে করা হয়েছে।

এদিকে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ছাড়া কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ১৭ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। হাসপাতালটি থেকে আরো ২৭ জন চিকিৎসা নিয়েছেন বলেও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর