কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভৈরবে নকল কয়েলের দুই কারখানাকে আড়াই লাখ টাকা জরিমানা, মালামাল ধ্বংস, সীলগালা


 আফসার হোসেন তূর্জা, ভৈরব | ১১ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ১১:৩৮ | ভৈরব 


কিশোরগঞ্জের ভৈরবে নকল কয়েল তৈরি ও বাজারজাত করার অপরাধে দুটি কারখানার মালিককে মোট আড়াই লাখ টাকা জরিমানা, মালামাল ধ্বংস এবং গোডাউন সীলগালা করা হয়েছে।

শনিবার (১০ এপ্রিল) বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত শহরের জগন্নাথপুর ও শম্ভুপুরে কয়েল কারখানা দুটিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা ভ্র্যাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এই জরিমানা, নকল কয়েল ধ্বংস ও গোডাউন সীলগালা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে শম্ভুপুরে এটাক কিং সুপার, চ্যাম্পিয়ন, নিমপাতা, তুলসীপাতা, বুশসহ বিভিন্ন নামের নকল মশার কয়েল উৎপাদন ও বাজারজাত করায় কারখানার মালিক আনোয়ারকে ২ লাখ টাকা জরিমানা, ২২০ কার্টুন কয়েল ও বিভিন্ন ব্রান্ডের ১ লাখ পিস কার্টুন আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।

পরে জগন্নাথপুরে জসিম উদ্দিনের কারখানায় অভিযান চালিয়ে একই অপরাধে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও গোডাউন সীলগালা করে দেয়া হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানার নেতৃত্বে এই ভ্রাম্যমাণ আদালতে সহযোগিতা করেন ভৈরব থানার ওসি মো. শাহিন ও পরিদর্শক (তদন্ত) মাহফুজ সহ থানা পুলিশের সদস্যরা।

এ বিষয়ে ভৈরব উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা বলেন, দুটি প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালানো হয়। এটাক কিং সুপার, চ্যাম্পিয়ন, বুশসহ বিভিন্ন নামের নকল মশার কয়েল উৎপাদন ও বাজাতজাত করায় কারখানার মালিক আনোয়ারকে ২ লাখ টাকা জরিমানা, ২২০ কার্টুন কয়েল ও বিভিন্ন ব্রান্ডের ১ লাখ পিস কার্টুন আগুনে পুড়িয়ে ধব্বংস করা হয়।

এছাড়া জগন্নাথপুরে জসিম উদ্দিনের কারখানায় অভিযান চালিয়ে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও গোডাউন সীলগালা করে দেয়া হয়।

নকল পণ্য ও ভেজালের বিরুদ্ধে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা জানান।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর