কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ছাত্র রাজনীতির ধরন


 মু আ লতিফ | ২৫ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১২:৪৪ | আমাদের কিশোরগঞ্জ 


প্রাসঙ্গিক ভাবে আরো একটি বিষয় এখানে উল্লেখ করতে চাই। তাহলো তৎকালীন ছাত্র রাজনীতির ধরন কি ছিলো। যতদূর দেখেছি তাতে বলতে পারি যে, ৬০-৭০ দশকে ছাত্র রাজনীতিতে নীতি-নৈতিকতা যথেষ্ট পরিমাণে অনুসরণ করা হতো।

প্রগতিশীল কার্যক্রম ও সৃজনশীলতা সংগঠনগুলোর শক্তির উৎস ছিলো। ফলে নেতৃত্বের জায়গাটির ভিত্তি ছিলো আদর্শ ও নীতি-নিষ্ঠতা। এ কারণে যে কেউ চাইলেই নেতৃত্বের আসনে বসতে পারতেন না।

নেতৃত্ব বাছাইয়ের ক্ষেত্রে সততা, মেধা, কর্মতৎপরতা ও রুচিশীলতাকে প্রাধান্য দেয়া হতো। এসব ক্ষেত্রে সংগঠনের কর্মীরা সাধারণত যোগ্যতর ব্যক্তিকেই স্বতঃস্ফুর্তভাবে মেনে নিতেন।

তৎকালে ছাত্র সংগঠনগুলো তাদের সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনার অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন দাবিসহ গণসচেতনতামূলক প্রচারপত্র ও সাময়িকী প্রকাশের ব্যবস্থা করতেন। তাছাড়া বাঙলা নববর্ষ, রবীন্দ্র-নজরুল জয়ন্তি, একুশে ফেব্রুয়ারিসহ বিভিন্ন দিবসে সংগঠনের পক্ষে দেয়াল পত্রিকা ও স্যুভেনির প্রকাশ করা হতো।

ছাত্র সংগঠনগুলো তাদের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ২-৩ বছর অন্তর অন্তর সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব বাছাই করতেন। সম্মেলনে পূর্ববর্তী কমিটির কার্যক্রম আলোচিত হতো। বিগত বছরগুলোর চুলছেরা বিশ্লেষণ ও সফলতা এবং  ভুল-ভ্রান্তি আলোচনা করে ভবিষ্যত কর্মপন্থা নির্ধারণ করা হতো।

তৃণমূল পর্যায়ের কর্মীরা এতে অবাধে অংশ নিতেন ও তাদের মতামত ব্যক্ত করতেন।  ছাত্র জীবনেই গণতন্ত্রের চর্চাটাও এভাবেই রপ্ত করা হতো।

ছাত্র নেতৃবৃন্দ সংগঠনের মাধ্যমে কলেজে সাহিত্য-সংস্কৃতি ও ক্রীড়া কার্যক্রমে সক্রিয় অংশ নিতেন। তারা বিতর্ক, আবৃত্তি নাটকে অংশ নিতেন। এসব কারণে নেতা-কর্মীরা শক্তপোক্ত হয়ে গড়ে উঠতেন।

তারা দেশ ও জনগণের কল্যাণ সাধনে তাই যে কোনো ত্যাগ স্বীকারে পিছপা হতেন না। এভাবেই তারা আগামী দিনে দেশের যোগ্য  নাগরিক হিসেবে বেড়ে উঠতেন।

আর একটা কথা বলা জরুরি বলে মনে করছি। সেটা হলো- তখন সবাই রাজনীতি করতে চাইতেন না। তখন সেটা বাণিজ্য ছিলো না। কারণ সততা, স্বচ্ছতা যেমন ছিলো তেমনি রাজনীতি করাটা তখন ঝুকিপূর্ণ ছিলো।

টু-পাইস ইনকাম নয় বরং ত্যাগ ও সেবাই প্রাধান্য পেত। যারা রাজনীতিতে আসতেন তারা জনগণ ও দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়েই রাজনীতিতে প্রবেশ করতেন।

নীতি-নৈতিকতার প্রশ্ন জড়িত ছিলো বলে যে কেউ এ পথে আসতে চাইতেন না। যারা সচেতন ও সেই সঙ্গে আপসহীন তাদেরকেই রাজনীতির মাঠে দেখা যেত। এখন রাজনীতির চিত্রটি সম্পূর্ণ বদলে গেছে এবং বদলে গেছে রাজনীতিবিদদের চরিত্রও। (চলবে)




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর