কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জে নতুন ১১ জনের শনাক্ত, করোনায় একজনের ও সন্দেহজনক একজনের মৃত্যু


 কিশোরগঞ্জ নিউজ রিপোর্ট | ৬ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৭:৩৯ | বিশেষ সংবাদ 



কিশোরগঞ্জে জেলার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সর্বশেষ বৃহস্পতিবার (৬ মে) সন্ধ্যায় প্রকাশিত রিপোর্টে জেলায় মোট ১১ জন নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর বিপরীতে করোনাভাইরাস মুক্ত হয়ে জেলায় এদিন সুস্থ হয়েছেন মোট ২১ জন।

এছাড়া করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে একজন মৃত্যুবরণ করেছেন। অন্যদিকে সন্দেহজনক কোভিড-১৯ একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বর্তমান রোগীর সংখ্যা কমেছে।

আগের দিন বুধবার (৫ মে) জেলায় বর্তমান আক্রান্তের মোট সংখ্যা ছিল ৩০৯ জন। বৃহস্পতিবার (৬ মে) এই সংখ্যা কমে হয়েছে ২৯৮ জন।

জেলায় নতুন করোনা শনাক্ত হওয়া ১১ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৫ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ২ জন, ভৈরব উপজেলায় ১ জন এবং বাজিতপুর উপজেলায় ৩ জন শনাক্ত হয়েছে।

মোট ১৮৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে এই ১১ জনের কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে।

কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের আরটি-পিসিআর ল্যাবে হাসপাতালটির প্রি-আইসোলেশনে ভর্তিকৃত জরুরী রোগীসহ মঙ্গলবার (৪ মে) ও বুধবার (৫ মে) সংগৃহীত মোট ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৯ জনের কোভিড-১৯ পজেটিভ এসেছে।

বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি-পিসিআর ল্যাবে বুধবার (৫ মে) মোট ৭০ জনের নমুনা পরীক্ষায় সবার কোভিড-১৯ নেগেটিভ এসেছে।

এছাড়া কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল এবং পাকুন্দিয়া, বাজিতপুর ও নিকলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মোট ১৯ জনের রেপিড এন্টিজেন টেস্টে ২ জনের কোভিড-১৯ পজেটিভ এসেছে।

নতুন সুস্থ হওয়া ২১ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার সর্বোচ্চ ১০ জন রয়েছেন।

এছাড়া বাকি ১১ জনের মধ্যে কুলিয়ারচর উপজেলার ৪ জন ও ভৈরব উপজেলার ৭ জন রয়েছেন।

এছাড়া এই রিপোর্ট অনুযায়ী, কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে একজন মৃত্যুবরণ করেছেন। তিনি নিকলী উপজেলার বাসিন্দা ৭৫ বছর বয়সী একজন পুরুষ।

করোনা শনাক্ত হওয়ার পর কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার (৫ মে) রাত ৮টার দিকে তিনি মারা গেছেন।

কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কোভিড ইউনিটে বর্তমানে আক্রান্ত ও সন্দেহজনক মোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৩৩ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় ১ জন নতুন ভর্তি হয়েছেন এবং ৫ জন ছাড়পত্র পেয়েছেন।

এছাড়া এই ২৪ ঘন্টায় হাসপাতালটিতে সন্দেহজনক কোভিড-১৯ একজনের মৃত্যু হয়েছে।

এই সময় পর্যন্ত জেলায় মোট ৪৬২০ জন শনাক্ত, ৪২৪২ জন সুস্থ এবং ৮০ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী ২৯৮ জন। তাদের মধ্যে ১৯ জন হাসপাতাল ও ২৭৯ জন হোম আইসোলেশনে রয়েছেন।

শনাক্ত, সুস্থ ও মৃত্যু সব সূচকেই জেলার মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা শীর্ষে রয়েছে। এরপরেই রয়েছে ভৈরব উপজেলা।

বর্তমানে করোনা আক্রান্ত মোট ২৯৮ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ১০৯ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ২৩ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ১০ জন, তাড়াইল উপজেলায় ৮ জন, পাকুন্দিয়া উপজেলায় ২০ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ২৫ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ১৯ জন, ভৈরব উপজেলায় ৩১ জন, নিকলী উপজেলায় ৬ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ২৯ জন, ইটনা উপজেলায় ১০ জন, মিঠামইন উপজেলায় ১ জন এবং অষ্টগ্রাম উপজেলায় ৭ জন রয়েছেন।

এদিকে গত ৭ ফেব্রুয়ারি ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রম শুরু হওয়ার পর গত ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত মোট ৭৬ হাজার ৬৬৫ জন প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছেন। এরপর থেকে প্রথম ডোজ দেয়া আপাতত বন্ধ রয়েছে।

অন্যদিকে গত ৮ এপ্রিল থেকে এ পর্যন্ত মোট ৪০ হাজার ৮৪১ জন দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিয়েছেন।

গত ২৪ ঘন্টায় এক হাজার ৯৩ জন দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিয়েছেন।

কিশোরগঞ্জ জেলার সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান এসব তথ্য কিশোরগঞ্জ নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর