কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা শোলাকিয়া, উড়বে ড্রোন


 স্টাফ রিপোর্টার | ১১ আগস্ট ২০১৯, রবিবার, ৬:০৮ | বিশেষ সংবাদ 


গত ঈদুল ফিতরের মতো ঈদুল আজহার জামাতকে ঘিরেও নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেয়া হচ্ছে কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ময়দান। শোলাকিয়া ময়দান আর আশপাশের এলাকাজুড়ে গড়ে তোলা হচ্ছে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা। নিরবচ্ছিন্ন নজরদারির জন্য ড্রোন উড়বে শোলাকিয়ার আকাশে।

বিজিবি, র‌্যাব, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ান, আরআরএফসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য দিয়ে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেয়া হবে শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানকে। ঈদগাহ ময়দানের বাইরে, ভেতরে ও প্রবেশ পথে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। জামাতকে সামনে রেখে শহর এবং আশপাশের এলাকায় বাড়ানো হয়েছে গোয়েন্দা নজরদারি।

ঈদগাহ ময়দান, আশেপাশের এলাকা এবং অলিগলিসহ মাঠ সংলগ্ন চারপাশের এলাকা নিয়ে আসা হচ্ছে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরায় আওতায়। মাঠে স্থাপন করা হচ্ছে ওয়াচ টাওয়ার। ঈদগাহ ময়দানের প্রবেশপথে স্থাপিত আর্চওয়ে দিয়ে মুসল্লিদের ঢুকতে হবে ঈদগাহ ময়দানে।

এর আগে আরো অন্তত কয়েক দফা মেটাল ডিটেক্টরে মুসল্লিদের দেহ তল্লাসি করা হবে। নিরাপত্তার স্বার্থে মুসল্লিদের কোনো ধরণের ব্যাগ নিয়ে ঢুকতে দেওয়া হবেনা। শুধু পাতলা জায়নামাজ নিয়ে তারা আসতে পারবেন। তবে বৃষ্টি হলে ছাতা নিয়ে আসতে পারবেন।

জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী জানিয়েছেন, শোলাকিয়ার ঐতিহ্যবাহী এই ঈদগাহে সকাল সাড়ে ৮টায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এবারের ১৯২তম ঈদুল আজহার জামাতে ইমামতি করবেন মাওলানা হিফজুর রহমান খান। শোলাকিয়া ঈদগাহের নিয়মিত ইমাম ইসলাহুল মুসলিহীন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসউদ হজে যাওয়ায় বিকল্প ইমাম হিসেবে মাওলানা হিফজুর রহমান খান জামাতে ইমামতি করবেন।

রোববার (১১ আগস্ট) দুপুরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশ্যে নিরাপত্তা ব্রিফিং করেন পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার)। ব্রিফিংয়ে তিনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সর্বোচ্চ আন্তরিকতা ও পেশাদারি মনোভাব নিয়ে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন।

এছাড়া ঈদের দিন সোমবার (১২ আগস্ট) বৃষ্টির সম্ভাবনার বিষয়টি মাথায় রেখে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের রেইনকোট সাথে নিয়ে আসারও নির্দেশ দেন পুলিশ সুপার।

পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি জানান, শান্তিপূর্ণভাবে ঈদজামাত অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে ৩২টি চেকপোস্ট বসানো হচ্ছে। চেকপোস্টগুলো এমন ভাবে তৈরি করা হয়েছে যে প্রত্যেককে অন্তত তিন বার তল্লাসি হয়ে ঈদগাহে প্রবেশ করতে হবে।

পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) জানান, শান্তিপূর্ণভাবে ঈদজামাত অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে মাঠের বাইরে, মাঠের ভেতরে ও প্রবেশ পথে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। মাঠের ভিতর-বাহিরে সাদা পোশাকেও পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা সতর্ক অবস্থানে থাকবেন। থাকবে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ান।

সার্বিক প্রস্তুতির বিবেচনায় নির্বিঘ্নে শোলাকিয়ায় মুসল্লিগণ ঈদুল আজহার জামাত আদায় করতে পারবেন বলে পুলিশ সুপার আশা প্রকাশ করেন।

পুলিশ সুপারের নিরাপত্তা ব্রিফিংয়ের সময় পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি পাওয়া কিশোগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. নাজমুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. মিজানুর রহমান প্রমুখ ছাড়াও জেলা পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে ড্রোন মহড়া অনুষ্ঠিত হয়।

১৮২৮ সালে জেলা শহরের পূর্বপ্রান্তে নরসুন্দা নদীর তীরে প্রায় ৭ একর জমির উপর এ মাঠের গোড়াপত্তন হয়। ওই বছর স্থানীয় সাহেব বাড়ির উর্দ্ধতন পুরুষ সৈয়দ আহমদ (র.) এর ইমামতিতে ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়। সে ঈদের জামাতে মুসল্লির সংখ্যা দাঁড়িয়েছিল ১ লাখ ২৫ হাজার অর্থাৎ সোয়া লাখ। এই সোয়া লাখ থেকেই উচ্চারণ বিবর্তনে বর্তমানে ‘শোলাকিয়া’ নামকরণ হয়েছে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর