কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


শোক-শ্রদ্ধায় শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলায় নিহতদের স্মরণ


 স্টাফ রিপোর্টার | ৭ জুলাই ২০১৯, রবিবার, ৯:১৯ | বিশেষ সংবাদ 


শোক-শ্রদ্ধায় শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলায় নিহতদের স্মরণ করা হয়েছে। ঘটনাস্থল চরশোলাকিয়া সবুজবাগ মোড়ে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) ফুল দিয়ে নিহত দুই পুলিশ সদস্যের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

রোববার (৭ জুলাই) দুপুরে জেলা পুলিশের কর্মকর্তাদের নিয়ে তিনি এই শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) অনির্বাণ চৌধুরী, কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. আবু বকর সিদ্দিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পরে পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) জঙ্গি হামলায় নিহত গৃহবধূ ঝর্ণা রাণী ভৌমিকের বাসায় গিয়ে পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলে তাদের খোঁজ খবর নেন এবং সহমর্মিতা প্রকাশ করেন।

পরে পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) সাংবাদিকদের বলেন, গুলশান এবং শোলাকিয়া হামলা একই সূত্রে গাঁথা। শোলাকিয়ায় হামলা মামলাটি বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছেন। অভিযুক্তদের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে বলে আমরা আশা করছি।

২০১৬ সালের ৭ জুলাই শোলাকিয়া ঈদগাহর বিশাল ঈদুল ফিতরের জামাত ও জামাতের ইমাম মুফতি ফরিদ উদ্দিন মাসউদের ওপর হামলার পরিকল্পনার অংশ হিসেবে জঙ্গিরা চাপাতি, বোমা এবং পিস্তল নিয়ে হামলা চালিয়েছিল। জঙ্গিরা চাপাতি দিয়ে আনসারুল হক ও জহিরুল ইসলাম নামে দু’জন কনস্টেবলকে কুপিয়ে হত্যা করে।

খবর পেয়ে অন্য পুলিশ সদস্যরা এগিয়ে গিয়ে তাদের প্রতিরোধ করলে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র কুমিল্লার সন্তান জঙ্গি আবির রহমান (২৩) গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। এছাড়া নিজ বাসায় মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়ে ঝর্ণা রাণী ভৌমিক (৪০) নামে এক গৃহবধূ মারা যান।

বন্দুকযুদ্ধের এক পর্যায়ে পুলিশ ও র‌্যাবের হাতে বুকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় অপর জঙ্গি দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট এলাকার শফিউল ইসলাম (২২) ধরা পড়ে। কিশোরগঞ্জ শহরের পশ্চিম তারাপাশা এলাকার জাহিদুল হক তানিম (২৬) নামে এক যুবকও আটক হয়। শফিউল পরবর্তী সময়ে এনকাউন্টারে মারা যায়।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর