কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কুলিয়ারচরে অস্ত্রের মুখে নবম শ্রেণির ছাত্রীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ


 মুহাম্মদ শাহ্ আলম, কুলিয়ারচর | ১৩ জুন ২০২১, রবিবার, ৬:২৮ | কুলিয়ারচর 



কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে কোচিং শেষে বাড়ি ফেরার পথে অস্ত্রের মুখে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে শ্মশান সংলগ্ন এক জঙ্গলে নবম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠেছে। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর অভিযুক্ত সাইফুল ইসলাম (২০) গাঢাকা দিয়েছে।

শনিবার (১২ জুন) সকাল ১০টার দিকে উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের তারিনি বিশ্বাসের পারিবারিক শ্মশান সংলগ্ন জঙ্গলে এ ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে।

এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে রোববার (১৩ জুন) কুলিয়ারচর থানায় অভিযুক্ত সাইফুল ইসলামকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।

ধর্ষণে অভিযুক্ত সাইফুল ইসলাম উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের নাপিতেরচর গ্রামের মো. শহীদ মিয়ার ছেলে।

স্কুল ছাত্রীর পিতার অভিযোগ, তার মেয়ে ফরিদপুর ইউনিয়ন আব্দুল হামিদ ভূইয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের  নবম শ্রেণির ছাত্রী।

গত শনিবার (১২ জুন) সকাল ১০টার দিকে স্থানীয় আনন্দ বাজারে ফরিদপুর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংলগ্ন এলাকায় আল আমিন নামের এক শিক্ষকের কোচিং সেন্টার থেকে কোচিং শেষে তার মেয়ে পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছিল।

পথে তারিনি বিশ্বাসের পারিবারিক শ্মশান এলাকার নির্জন স্থানে পৌঁছলে লম্পট সাইফুল পিছন থেকে এক হাতে মেয়েটির নাক-মুখ চেপে ধরে এবং অপর হাতে তার গলায় একটি ধারালো ছুরি ধরে।

এভাবে অস্ত্রের মুখে মেয়েটিকে সাইফুল পাশের জঙ্গলে নিয়ে যায় এবং সেখানে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

এদিকে কোচিং শেষে বাড়ি ফেরার পথে অস্ত্রের মুখে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ব্যাপারে কুলিয়ারচর থানার ওসি এ.কে.এম সুলতান মাহমুদ জানান, এ ঘটনায় রোববার (১৩ জুন) অভিযোগ পাওয়ার পর থানায় মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।

আসামিকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।


[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর