কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


পাকুন্দিয়ায় কিশোরকে ছুরিকাঘাতে হত্যা, দুই সহোদর গ্রেপ্তার


 সাখাওয়াত হোসেন হৃদয় | ১১ এপ্রিল ২০২১, রবিবার, ১০:০৫ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলায় রবিউল আউয়াল লিমন (১৭) নামে এক কিশোরকে হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ইয়াসিন (১৭) ও মুরসালিন (১৪) নামে দুই কিশোরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রোববার (১১ এপ্রিল) ভোরে উপজেলার শৈলজানী এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে পাকুন্দিয়া থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা সম্পর্কে সহোদর ভাই। তারা উপজেলার কোদালিয়া মধ্যপাড়া গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে।

গত শুক্রবার (৯ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার পূর্বপাড়া গ্রামে ছুরিকাঘাতে লিমনকে হত্যা করা হয়।

নিহত লিমন কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার চৌদ্দশত ইউনিয়নের বগাডুবি গ্রামের শহীদ মিয়ার ছেলে। সে রাজমিস্ত্রীর কাজ করতো।

জানা যায়, গত শুক্রবার (৯ এপ্রিল) বিকালে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার বানাইল গ্রামের একটি মাঠে গোল্লাছুট খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

সেই খেলা দেখে লিমন ও তার তিন বন্ধু পাশর্^বর্তী পাকুন্দিয়া উপজেলার কোদালিয়া পূর্বপাড়া গ্রামের মুর্শিদ আলীর ধান ক্ষেতের পাশে বসে আড্ডা দিচ্ছিল।

এসময় পাকুন্দিয়া উপজেলার সীমানার ভেতরে বসে আড্ডা দেওয়ার কারণ জানতে চায় ইয়াসিন ও মুরসালিনসহ তার বন্ধুরা। এনিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক শুরু হয়।

একপর্যায়ে ইয়াসিন ও মুরসালিনের বন্ধু একই গ্রামের মোবারক (২০) উত্তেজিত হয়ে সঙ্গে থাকা ছুরি দিয়ে লিমনকে উপর্যুপরি আঘাত করে। এতে লিমন গুরুতর আহত হয়ে পাশের ধান ক্ষেতে পড়ে যায়।

পরে লিমনের বন্ধুরা মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় শনিবার (১০ এপ্রিল) রাতে লিমনের মামা মো. মনির হোসেন বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ২-৩জনকে আসামি করে পাকুন্দিয়া থানায় মামলা করেন।

পাকুন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সারোয়ার জাহান বলেন, ‘লিমন হত্যার ঘটনায় তার মামা বাদী হয়ে পাকুন্দিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলায় অভিযুক্ত দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদের দ্রুত গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর