কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জে নতুন ১৮ জনের করোনা, মোট শনাক্ত ২১২৩, সুস্থ ১৮৪০, মৃত্যু ৩৮


 কিশোরগঞ্জ নিউজ রিপোর্ট | ৭ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার, ১০:৩৯ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জে সর্বশেষ শুক্রবার (৭ আগস্ট) দিবাগত রাতে প্রকাশিত রিপোর্টে জেলায় নতুন করে ১৮ জনের করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে। একই সঙ্গে নতুন করে ৫ জন সুস্থ হয়েছেন। নতুন শনাক্ত ও সুস্থ এই দুই ক্ষেত্রেই জেলায় শীর্ষে রয়েছে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা।

শুক্রবার (৭ আগস্ট) দিবাগত রাতে মোট ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত এই নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে জেলায় নতুন করে মোট ১৮ জনের করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। অন্যদিকে ৭৫ জনের নেগেটিভ এসেছে। এছাড়া পুরাতন পজেটিভ একজনের আবারও পজেটিভ এসেছে।

নতুন ১৮ জনের করোনা পজেটিভ আসায় জেলার ১৩টি উপজেলায় মোট ২১২৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে মোট ১৮৪০ জন সুস্থ হয়েছেন। এছাড়া করোনার ছোবলে এই সময়ে ঝরে গেছে ৩৮টি মূল্যবাণ প্রাণ।

সুস্থ ও মৃত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২৪৫ জন।

নতুন করোনা শনাক্ত হওয়া ১৮ জনের মধ্যে ১২ জনই কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায়। এছাড়া বাকি ৬ জনের মধ্যে ভৈরব উপজেলায় ৪ জন ও বাজিতপুর উপজেলায় ২ জন রয়েছেন।

নতুন সুস্থ হওয়া ৫ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার সর্বোচ্চ ৩ জন রয়েছেন। এছাড়া বাকি ২ জনের কুলিয়ারচর উপজেলার ১ জন ও ভৈরব উপজেলার ১ জন রয়েছেন।

সুস্থ ও মৃত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ২৪৫ জনের মধ্যে ৩১ জন হাসপাতালে এবং বাকি ২১৪ জন নিজ নিজ বাড়িতে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন।

হাসপাতালে থাকা ৩১ জনের মধ্যে দুইজন শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন।

এছাড়া অন্য জেলায় শনাক্তকৃত ১ জন করোনা পজেটিভ এবং ৮ জন সাসপেক্টটেড/নেগেটিভ বিভিন্ন হাসপাতালে আইসোলেশনে রয়েছেন।

শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রি-আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তিকৃত জরুরী রোগীসহ বুধবার (৫ আগস্ট), বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) ও শুক্রবার (৭ আগস্ট) সংগৃহীত ৯৪ জনের নমুনা কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষা করা হয়।

ল্যাবটিতে এই ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) পর্যন্ত কিশোরগঞ্জ জেলায় করোনা শনাক্তের সংখ্যা ছিল ২১০৫ জন। শুক্রবার (৭ আগস্ট) নতুন করে আরো ১৮ জনের করোনা শনাক্ত হওয়ায় বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১২৩ জনে।

এদিকে জেলায় করোনাভাইরাস থেকে নতুন করে ৫ জন সুস্থ হয়েছেন। এর আগে জেলায় সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ছিল ১৮৩৫ জন। ফলে সুস্থ হওয়ার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮৪০ জন।

শুক্রবার (৭ আগস্ট) দিবাগত রাত সোয়া ১০টার দিকে কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান কিশোরগঞ্জ নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান কিশোরগঞ্জ নিউজকে জানান, প্রকাশিত ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে নতুন করে ১৮ জনের পজেটিভ ও ৭৫ জনের নেগেটিভ এসেছে। এছাড়া পুরাতন পজেটিভ একজনের আবারও পজেটিভ এসেছে।

ফলে শুক্রবার (৭ আগস্ট) পর্যন্ত পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী কিশোরগঞ্জ জেলায় মোট ২১২৩ জনের করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পজেটিভ এসেছে।

উপজেলাওয়ারী হিসাবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৬৫০ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ৫১ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ১২২ জন, তাড়াইল উপজেলায় ৯১ জন, পাকুন্দিয়ায় উপজেলায় ১১২ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ১১৯ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ১০৯ জন, ভৈরব উপজেলায় ৫৭১ জন, নিকলী উপজেলায় ৪৫ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ১৭০ জন, ইটনা উপজেলায় ৩২ জন, মিঠামইন উপজেলায় ৩৮ জন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় ১৩ জন এ পর্যন্ত করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পজেটিভ শনাক্ত হয়েছেন।

তাদের মধ্যে ৩৮ জন মৃত ব্যক্তি রয়েছেন। উপজেলাওয়ারী হিসেবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৯ জন, হোসেনপুর উপজেলার ১ জন, করিমগঞ্জ উপজেলার ২ জন, তাড়াইল উপজেলার ১ জন, কটিয়াদী উপজেলার ১ জন, কুলিয়ারচর উপজেলার ৩ জন, ভৈরব উপজেলার ১৪ জন, নিকলী উপজেলার ৩ জন, বাজিতপুর উপজেলার ২ জন, ইটনা উপজেলার ১ জন ও মিঠামইন উপজেলার ১ জন মৃত ব্যক্তি রয়েছেন।

সুস্থ ও মৃত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২৪৫ জন। উপজেলাওয়ারী হিসাবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ১৪১ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ৬ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ৫ জন, তাড়াইল উপজেলায় ৯ জন, পাকুন্দিয়ায় উপজেলায় ৯ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ১১ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ১ জন, ভৈরব উপজেলায় ৪০ জন, নিকলী উপজেলায় ১০ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ১১ জন, ইটনা উপজেলায় ১ জন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় ১ জন বর্তমানে করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তি রয়েছেন।

জেলার ১৩ টি উপজেলার মধ্যে একমাত্র মিঠামইন উপজেলায় বর্তমানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কোন রোগী নেই।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর