কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জে নতুন ৫৭ জনের করোনা, সদরে সর্বোচ্চ ২৩, রেকর্ড ১২১ জন সুস্থ


 কিশোরগঞ্জ নিউজ রিপোর্ট | ১ জুলাই ২০২০, বুধবার, ১:৩৫ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জে সর্বশেষ মঙ্গলবার (৩০ জুন) দিবাগত রাতে পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে জেলায় নতুন করে ৫৭ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ফলে এ পর্যন্ত জেলার ১৩ উপজেলায় এক হাজার ৫২০ জনের শরীরে ধরা পড়েছে করোনা। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৯২৮ জন। মারা গেছেন ২৪ জন।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) দিবাগত রাতে পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে জেলায় নতুন করোনা শনাক্ত হওয়া ৫৭ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় সর্বোচ্চ ২৩ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ১ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ৬ জন, তাড়াইল উপজেলায় ১ জন, পাকুন্দিয়া উপজেলায় ৪ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ৩ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ৫ জন, ভৈরব উপজেলায় ৮ জন, নিকলী উপজেলায় ১ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ৩ জন, ইটনা উপজেলায় ১ জন ও মিঠামইন উপজেলায় ১ জন রয়েছেন।

অন্যদিকে নতুন করে জেলায় ১২১ জন করোনাভাইরাস মুক্ত হয়ে সুস্থ হয়েছেন। যা এখন পর্যন্ত একদিনে জেলায় সর্বোচ্চ সুস্থ হওয়ার রেকর্ড।

নতুন সুস্থ হওয়া ১২১ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৫৬ জন, হোসেনপুর উপজেলার ৫ জন, করিমগঞ্জ উপজেলার ৫ জন, তাড়াইল উপজেলার ৩ জন, ভৈরব উপজেলার ১৭ জন, নিকলী উপজেলার ৯ জন, বাজিতপুর উপজেলার ২৪ জন ও ইটনা উপজেলার ২ জন রয়েছেন।

গত ২০ জুন জেলায় সংগৃহীত ৮৩ জনের নমুনা ও ২৫ জুন (বৃহস্পতিবার) সংগৃহীত ১১৬ জনের নমুনা মহাখালীর ইনস্টিটিউট অব পাবলিক হেলথ (আইপিএইচ) এ, শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রি-আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তিকৃত জরুরী রোগীসহ বুধবার (২৪ জুন), শুক্রবার (২৬ জুন), শনিবার (২৭ জুন), রোববার (২৮ জুন) এবং সোমবার (২৯ জুন) সংগৃহীত ১৮৭ জনের নমুনা কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে এবং বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে সোমবার (২৯ জুন) সংগৃহীত ৮ জনের নমুনা আইসিডিডিআরবি’তে পরীক্ষা করা হয়।

তিনটি ল্যাবে মোট ৩৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে ৫৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

সোমবার (২৯ জুন) পর্যন্ত কিশোরগঞ্জ জেলায় করোনা শনাক্তের সংখ্যা ছিল ১৪৬৩ জন। মঙ্গলবার (৩০ জুন) নতুন করে আরো ৫৭ জনের করোনা শনাক্ত হওয়ায় বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫২০ জনে।

এদিকে জেলায় করোনাভাইরাস থেকে নতুন করে ১২১ জন সুস্থ হয়েছেন। এর আগে জেলায় সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ছিল ৮০৭ জন। ফলে সুস্থ হওয়ার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯২৮ জন।

বর্তমানে অন্য জেলায় শনাক্তকৃত ২ জন করোনা পজেটিভসহ জেলায় মোট ৫৭০ জন করোনা রোগী এবং ৬ জন সাসপেক্টটেড/নেগেটিভ বিভিন্ন হাসপাতাল ও নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছেন।

এর মধ্যে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউতে তিনজন কোভিড-১৯ পজেটিভ রোগী ভর্তি রয়েছেন।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) দিবাগত রাত সোয়া ১টার দিকে কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান জানান, প্রকাশিত ৩৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে নতুন করে মোট ৫৭ জনের পজেটিভ ও ৩২৬ জনের নেগেটিভ এসেছে। এছাড়া পুরাতন কোভিড-১৯ পজেটিভ ১১ জনের আবারো পজেটিভ এসেছে।

নতুন করোনা শনাক্ত হওয়া এই ৫৭ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় সর্বোচ্চ ২৩ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ১ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ৬ জন, তাড়াইল উপজেলায় ১ জন, পাকুন্দিয়া উপজেলায় ৪ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ৩ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ৫ জন, ভৈরব উপজেলায় ৮ জন, নিকলী উপজেলায় ১ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ৩ জন, ইটনা উপজেলায় ১ জন ও মিঠামইন উপজেলায় ১ জন রয়েছেন।

ফলে মঙ্গলবার (৩০ জুন) পর্যন্ত পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী কিশোরগঞ্জ জেলায় মোট ১৫২০ জনের করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ পজেটিভ এসেছে।

উপজেলাওয়ারী হিসাবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৩২০ জন, হোসেনপুর উপজেলার ৩৬ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ১০১ জন, তাড়াইল উপজেলায় ৭৬ জন, পাকুন্দিয়ায় উপজেলায় ৬৮ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ৮৮ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ৯৯ জন, ভৈরব উপজেলায় ৫১০ জন, নিকলী উপজেলায় ২৪ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ১২২ জন, ইটনা উপজেলায় ২৯ জন, মিঠামইন উপজেলায় ৩৭ জন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় ১০ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

তাদের মধ্যে ২৪ জন মৃত ব্যক্তি রয়েছেন। সর্বশেষ রোববার (২৮ জুন) সকালে কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাড়াইলের প্যাথলজি ব্যবসায়ী মাজহারুল হক রানা (৬৫) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

উপজেলাওয়ারী হিসেবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৫ জন, হোসেনপুর উপজেলার ১ জন, করিমগঞ্জ উপজেলার ২ জন, তাড়াইল উপজেলার ১ জন, কটিয়াদী উপজেলার ১ জন, কুলিয়ারচর উপজেলার ১ জন, ভৈরব উপজেলার ১০ জন, নিকলী উপজেলার ১ জন, বাজিতপুর উপজেলার ১ জন ও মিঠামইন উপজেলার ১ জন মৃত ব্যক্তি রয়েছেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর