কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


করোনার পর জীবন থেকেই ছুটি নিলেন আবুল হোসেন


 সাখাওয়াত হোসেন হৃদয় | ৩০ জুন ২০২০, মঙ্গলবার, ১১:৫৯ | বিশেষ সংবাদ 


করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের নিরাপত্তা প্রহরী মো. আবুল হোসেন। গত ২৭ জুন হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্রও পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কাজে আর যোগ না দিয়ে বরং জীবন থেকেই ছুটি নিয়েছেন সাদাসিদে মানুষটি।

সাত মাসের অন্ত:সত্ত্বা স্ত্রী আর তিন সন্তানকে অকুলে ভাসিয়ে আবুল হোসেন চলে গেছেন না ফেরার দেশে। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

তাঁর বাড়ি একই জেলার হোসেনপুর উপজেলায়।

জানা যায়, মাসখানেক আগে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কোভিড ইউনিটে ভর্তি হন মো. আবুল হোসেন।

এসময় অবস্থার অবনতি হলে তাকে সপ্তাহ তিনেক আগে কিশোরগঞ্জ শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সেখানে চিকিৎসা নেওয়ার পর গত ২৭ জুন (শনিবার) তাকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়।

ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফেরার পরদিন রোববার (২৮ জুন) বিকেলে অজ্ঞান হয়ে পড়েন আবুল হোসেন। পরে তাকে দ্রুত কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়।

অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় সেখান থেকে তাকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার (৩০ জুন) বিকেল সাড়ে ৩টায় তিনি মারা যান।

এদিকে তাঁর মৃত্যুতে শোক জানিয়েছে জেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর। শোকবার্তায় কিশোরগঞ্জ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সকল কর্মকর্তা কর্মচারীর পক্ষ থেকে পাকুন্দিয়া উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নিরাপত্তা প্রহরী আবুল হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানানো হয়েছে।

মৃত্যুকালে আবুল হোসেন স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক কন্যা সন্তান রেখে গেছেন। তাঁর স্ত্রী ৭ মাসের অন্তসত্তা বলে একটি সূত্র জানিয়েছে।

উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নিরাপত্তা প্রহরী মো. আবুল হোসেন খুবই বিনয়ী মানুষ ছিলেন। উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদে নিয়মিত পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতেন।

ব্যক্তি জীবনে তিনি খুবই সৎ জীবনযাপন করে গেছেন। ভাল ব্যবহার ও সততার মধ্য দিয়ে তিনি পাকুন্দিয়ার মানুষের মন জয় করেছিলেন।

তাঁর অকাল মৃত্যুতে মুসল্লিসহ উপজেলা পরিষদ মার্কেটের ব্যবসায়িরাও মর্মাহত। তারা আবুল হোসেনের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছেন।

আবুল হোসেন একজন সৎ ও দ্বীনদার মানুষ ছিলেন। পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে কর্মস্থলে উপস্থিত থেকে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে তিনি মহামারি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

সরকার যেন তাঁর অসহায় পরিবারটিকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করেন সেই দাবি পাকুন্দিয়া উপজেলাবাসীর।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর