কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভৈরবে বাড়ছে করোনা উপসর্গে মৃত্যু, সতর্ক হওয়ার আহ্বান


 স্টাফ রিপোর্টার | ২২ মে ২০২০, শুক্রবার, ১১:৪৭ | ভৈরব 


কিশোরগঞ্জের ভৈরবে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার (২১ মে) জাহাঙ্গীর আলম (৭০) নামে এক কাঠ ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। মারা যাওয়ার পর এই ব্যবসায়ীর নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

ভৈরবে এর আগে আরো দুই ব্যবসায়ী করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। তাদের মধ্যে গত ১৫ মে রাতে কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান মাছ ব্যবসায়ী অমিয় চন্দ্র দাস (৬০)। তার মৃত্যুর পর পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে কোভিড-১৯ পজেটিভ আসে।

অন্যদিকে গত মঙ্গলবার (১৯ মে) করোনা উপসর্গ নিয়ে জানে আলম ওরফে শাহ আলম মোল্লা (৩৮) নামে এক সব্জি ব্যবসায়ী মারা গেছেন। তার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট এখনও পাওয়া যায়নি।

ভৈরবে এভাবে করোনাভাইরাস উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়লেও মানুষ নমুনা পরীক্ষা করানোর ক্ষেত্রে সেভাবে আগ্রহী হচ্ছে না।

এ রকম পরিস্থিতিতে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বুলবুল আহমেদ শুক্রবার (২২ মে) এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে জনসাধারণকে সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি যেকোন উপসর্গ দেখা দিলেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হটলাইনে যোগাযোগ অথবা প্রতিদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ১২টার মধ্যে ট্রমা সেন্টারের করোনা কোয়ারান্টাইন সেন্টারে করোনা পরীক্ষা করতে আসার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে ডা. বুলবুল আহমেদ লিখেছেন, “ইদানীং লক্ষ্য করা যাচ্ছে, ভৈরবসহ সারাদেশে জ্বর, সর্দি কাশি ইত্যাদি মৃদু উপসর্গের রোগী হঠাৎ শ্বাসকষ্ট হয়ে করোনা টেস্ট করার আগেই বা রিপোর্ট পাওয়ার আগেই চিকিৎসা নেওয়ার আগেই মারা যাচ্ছে। এরকম মৃত্যুহার দেশে বেড়েই চলছে।

এমতাবস্থায় জনসাধারণের কাছে অনুরোধ, অবস্থা জটিল হওয়ার আগেই আপনারা সতর্ক হোন।

করোনার যেকোন উপসর্গ (জ্বর, সর্দি, কাশি, গলা ব্যথা, পাতলা পায়খানা ইত্যাদি) দেখা দিলেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হটলাইনে যোগাযোগ করুন অথবা প্রতিদিন সকাল ১০:৩০-১২:০০ এর মধ্যে (ট্রমা সেন্টারে) করোনা কোয়ারান্টাইন সেন্টারে করোনা পরীক্ষা করতে চলে আসুন।”




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর