কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভৈরবে মারা যাওয়া ইতালি ফেরত ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত ছিলেন না


 স্টাফ রিপোর্টার | ২৪ মার্চ ২০২০, মঙ্গলবার, ৩:০১ | বিশেষ সংবাদ 


ভৈরবে রোববার (২২ মার্চ) রাতে মারা যাওয়া ইতালি ফেরত আব্দুল খালেক (৬০) করোনাভাইরাস দিয়ে কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত ছিলেন না। জাতীয় রোগতত্ত্ব নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা কেন্দ্র থেকে নমুনা সংগ্রহ করার পর কোভিড-১৯ নেগেটিভ রিপোর্ট পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান। তিনি জানান, জাতীয় রোগতত্ত্ব নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা কেন্দ্র থেকে মৃত ব্যক্তির ছাড়াও তার স্ত্রী, পুত্রবধূ ও ভাইয়ের স্ত্রীর নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। এই তিনজনেরও কোভিড-১৯ নেগেটিভ রিপোর্ট পাওয়া গেছে।

সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান আরো জানান, ইতালি ফেরত ব্যক্তিকে চিকিৎসা প্রদানকারী চিকিৎসকদের ভাষ্য অনুযায়ী ওই ব্যক্তির মৃত্যু হৃদরোগজনিত কারণে হতে পারে।

এদিকে করোনা সন্দেহে মৃত রোগীর সংস্পর্শে আসার কারণে ভৈরব শহরের লক্ষ্মীপুর এলাকার আবেদীন হাসপাতাল (প্রা.) ও কমলপুর এলাকার ডক্টরস চেম্বার নামে পরিচিত বেসরকারি সাঈদ ইউসুফ মেমোরিয়াল হাসপাতাল এই দুইটি বেসরকারি হাসপাতালকে সাময়িকভাবে বন্ধ করার নোটিশ দেওয়া হয়েছিল।

মৃত ব্যক্তির করোনাভাইরাস নেগেটিভ আসায় এই দুইটি প্রাইভেট হাসপাতালকে তাদের পুনরায় স্বাভাবিক কার্যক্রম শুরু করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বুলবুল আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ইতালি ফেরত ওই ব্যক্তিকে রোববার (২২ মার্চ) রাত পৌনে ১১টার দিকে ভৈরব শহরের কমলপুর এলাকার ডক্টরস চেম্বার নামে পরিচিত বেসরকারি সাঈদ ইউসুফ মেমোরিয়াল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এর আগে তাকে শহরের লক্ষ্মীপুর এলাকার আবেদীন হাসপাতাল (প্রা.) নামে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে সরকারি আইসোলেশন সেন্টারে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল। ইতালি ফেরত ওই ব্যক্তি জ্বর ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন।

সোমবার (২৩ মার্চ) সকালে ঢাকা থেকে আইইডিসিআর এর লোকজন ভৈরবে এসে করোনাভাইরাস সন্দেহে মারা যাওয়া ওই ব্যক্তির রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে। এছাড়া ওই ব্যক্তির পরিবারের তিন সদস্যের নমুনাও তখন সংগ্রহ করে আইইডিসিআর।

মারা যাওয়া ইতালি ফেরত আব্দুল খালেকের বাড়ি ভৈরব পৌর শহরের জগন্নাথপুর এলাকায়। তিনি গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ইতালি থেকে দেশে ফিরেছিলেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর