কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


পেঁয়াজ, চালসহ নিত্যপণ্যে পাইকারি বিক্রেতা এক টাকার বেশি লাভ করতে পারবেন না


 মিছবাহ উদ্দিন মানিক | ২০ মার্চ ২০২০, শুক্রবার, ৮:২১ | হোসেনপুর 


কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে ব্যবসায়ীদের সাথে নিত্যপণ্যের দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (২০ মার্চ) বিকালে উপজেলা পরিষদ হল রুমে হোসেনপুর উপজেলা প্রশাসন এই জরুরী সভার আয়োজন করে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ মহি উদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সোহেল, হোসেনপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সোনাহর আলী, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ওয়াহিদুজ্জামান, থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, সাবেক প্রধান শিক্ষক সন্তোষ চন্দ্র মোদক, হোসেনপুর প্রেসক্লাব সভাপতি প্রদীপ কুমার সরকার, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী দীপক চন্দ্র মোদক প্রমুখ।

সভায় ব্যবসায়ী, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় মূল্য নিয়ন্ত্রণে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এতে যে সকল সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় তা নিম্নরূপ:

১. সকল পাইকারি ও খুচরা দোকানে মূল্য তালিকা রাখতে হবে।

২. পেঁয়াজ, চাল ইত্যাদি পণ্যে পাইকারি বিক্রেতা সর্বোচ্চ ৫০ পয়সা থেকে ১ টাকার বেশি লাভ করতে পারবেন না। এবং খুচরা বিক্রেতা সর্বোচ্চ ৩-৫ টাকা। অন্যথায় আইনের আওতায় আসবেন।

৩. পাইকারি বিক্রেতা অগ্রিম দাম খুচরা ব্যবসায়ী কে ধরতে পারবেন না। উক্ত মালামাল গুদামে আসার পর খুচরা দাম সংশ্লিট কমিটির নিকট অনুমতি নিয়ে বিক্রি করবেন।

৪. প্রত্যেক দোকানের পাশে করোনা প্রতিরোধে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখতে হবে।

৫. আগের কেনা পণ্যে একইদিনে দাম বৃদ্ধি করা যাবে না। নতুন পণ্য আসলে সে দাম কেবল পরিবর্তিত হবে।

৬. ভাউচার/রশিদ পাকা ব্যতীত (ক্রয় /বিক্রয়) ব্যতীত কোন প্রকার মালামাল রাখতে পারবেন না। রাখলে তা অবৈধ হিসেবে ধরা হবে। উক্ত রশিদ দেখেই যে কোন ক্রেতা তাঁর জবাবদিহি নিশ্চিত করবেন।

৭. অস্বাভাবিক যে কোন পণ্যের দাম বৃদ্ধি হলে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

৮. প্রত্যহ দাম নিয়ন্ত্রণে সংশ্লিষ্ট কমিটি অনুমোদন দিবে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর