কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত কটিয়াদীর বাদলের পরিবারে আহাজারী


 কিশোরগঞ্জ নিউজ ডেস্ক | ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শুক্রবার, ১২:০৩ | প্রবাস 


সৌদি আরবে এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় বাদল মিয়া (৩৯) নামে এক বাংলাদেশি যুবক নিহত হয়েছেন। বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে রাস্তা পারাপারের সময় একটি প্রাইভেট কার চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

নিহত বাদল মিয়া কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী উপজেলার জালালপুর ইউনিয়নের চরপুক্ষিয়া গ্রামের মৃত মো. সুলতান উদ্দিনের ছেলে।

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় বাদল মিয়ার নিহত হওয়ার খবরে পরিবারে চলছে শোকের মাতম। এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

পারিবারিক সূত্র জানায়, বাদল মিয়া বিবাহিত। দেশের বাড়িতে তার স্ত্রী এবং দুই কন্যা সন্তান রয়েছে।

২০০২ সালে বাদল সৌদি আরবে যান। সর্বশেষ তিনি দেশের বাড়িতে এসে ছুটি কাটিয়ে মাস দেড়েক আগে আবার সৌদি আরবে যান। বাদল সৌদি আরবে ড্রাইভিংয়ের কাজ করতেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাদল মিয়ার বড় আরো দুই ভাই রয়েছে। তাদের মধ্যে সবার বড় মো. আবদুল বাতেন বাড়িতে রয়েছেন। এছাড়া আরেক ভাই বকুল মিয়া সৌদি আরবের দাম্মামে থাকেন।

বড় ভাই মো. আবদুল বাতেন জানিয়েছেন, বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে ইস্ত্রি করা কাপড় লন্ড্রী থেকে নিয়ে রাস্তা পারাপারের সময় একটি প্রাইভেট কার বাদলকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

দেশের বাড়িতে বাদলের বৃদ্ধা মা, স্ত্রী এবং দুই কন্যা রয়েছে। দুই কন্যার মধ্যে বড় বৃষ্টি আক্তার ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী। আর ছোট মেয়ের বয়স দেড় বছর।

তার ভাইয়ের লাশ দ্রুত দেশে আনার জন্যও আবদুল বাতেন সরকারের নিকট দাবি জানিয়েছেন।

সড়ক দুর্ঘটনায় বাদল মিয়ার নিহত হওয়ার খবরটি কটিয়াদীর গ্রামের বাড়িতে পৌঁছার পর থেকেই পরিবারটিতে চলছে মাতম। স্ত্রী সোমা আক্তার, বৃদ্ধা মা আর স্বজনদের কান্না আর আহাজারিতে ভারি হয়ে ওঠে এলাকার পরিবেশ।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর