কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভাষা শহীদদের বিনম্র শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত কিশোরগঞ্জ


 মো. এস. হোসেন আকাশ | ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার, ২:৩৮ | বিশেষ সংবাদ 


আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে কিশোরগঞ্জে ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে। এজন্যে কিশোরগঞ্জ জেলা শহর ছাড়াও জেলার সবক’টি উপজেলা সদর থেকে শুরু করে তৃণমূল পর্যায়ে গ্রাম-পাড়াতেও চলছে শোক-শ্রদ্ধায় শহীদদের স্মরণ করার জন্য শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি।

শহরের গুরুদয়াল সরকারি কলেজ মাঠের শহীদ মিনারে জেলার প্রধান ও বৃহৎ আয়োজনে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে ভাষা শহীদদের স্মরণ ও শ্রদ্ধা জানানো হবে।

ইতোমধ্যে শহীদ মিনার ধোয়া-মোছা ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা এবং রঙের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। চলছে শেষ মুহুর্তের আনুষ্ঠানিকতার প্রস্তুতি। তাই শেষ মুহূর্তে শহীদ মিনারে পাদদেশসহ পায়ে চলার রাস্তাও রং-তুলির আঁচড়ে সাজানো হয়েছে।

২১শে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে বীর শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাতে অপেক্ষার প্রহর গুণছেন কিশোরগঞ্জবাসী।

৬৮ বছর আগে ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারির এই দিনে রফিক, সালাম, বরকত, সফিউর, জব্বাররা মাতৃভাষা বাংলার মর্যাদা রাখতে গিয়ে বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়েছিলেন। তাদের তাজা রক্তের বিনিময়ে শৃঙ্খলমুক্ত হয়েছিল মায়ের ভাষা, বাংলা বর্ণমালা।

রাত ১২টা ১ মিনিট থেকেই অর্থাৎ ২১শে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে কিশোরগঞ্জের শহরের পশ্চিমপ্রান্তে গুরুদয়াল সরকারি কলেজ মাঠে অবস্থিত শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামবে, শ্রদ্ধা জানানো হবে ভাষা শহীদদের।

প্রতি বছরের মতো এবারও সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য ইতোমধ্যে শহীদ মিনারে সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

২১ ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ ও জেলার বিভাগ, দপ্তর ও সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সর্বস্তরের জনগণের জন্য শহীদ মিনার উন্মুক্ত থাকবে। সাধারণ মানুষদের জন্য শ্রদ্ধা নিবেদন ও শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বেরিয়ে যাওয়ার জন্য আলাদা রোডম্যাপ তৈরি করা হয়েছে।

২১শে ফেব্রুয়ারি সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি, আধা সরকারি, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এবং বেসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান/ভবনে সঠিক নিয়মে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে রাখা হবে।

সকাল ১০টায় কিশোরগঞ্জ জেলা শিশু একাডেমি চত্বরে রচনা, আবৃত্তি, সুন্দর হাতের লেখা (বাংলা) ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

এইদিন জাতীয় অনুষ্ঠানের সঙ্গে সংহতি রেখে জেলা/উপজেলা পর্যায়ে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যথাযোগ্য মর্যাদায় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন করবে।

বাদ জুম্মা ও সুবিধাজনক সময়ে ভাষা শহীদদের রুহের মাগফেরাত/আত্মার শান্তি কামনা করে সকল মসজিদ, মন্দির, গীর্জা ও অন্যান্য উপাসনালয়ে বিশেষ মোনাজাত ও প্রার্থনা করা হবে।

অন্যদিকে ২১শে ফেব্রুয়ারি দিন বিকাল সাড়ে ৩টায় কিশোরগঞ্জ বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুল সংলগ্ন মাঠে বইমেলার শুভ উদ্বোধন করা হবে। এবারের বই মেলাট ২১শে ফেব্রুয়ারি থেকে ২৭শে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে।

মেলায় প্রতিদিন আলোচনা সভা, কবিতা ও ছড়া পাঠের আসর, কুইজ প্রতিযোগিতা, উপস্থিত বক্তৃতা, জারীগান, গ্রামীণ খেলাধুলা, পুঁথিপাঠ এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর