কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


মহাবিপ্লবী অরবিন্দ ঠাকুর স্মরণে কিশোরগঞ্জে আলোচনা ও স্মৃতি ফলক উন্মোচন


 স্টাফ রিপোর্টার | ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ২:৪৫ | বিশেষ সংবাদ 


জাতীয় শিক্ষার প্রথম উদ্যোক্তা তথা মহাবিপ্লবী ঋষি অরবিন্দ ঠাকুর স্মরণে কিশোরগঞ্জে আলোচনা সভা ও তাঁর স্মরণে স্মৃতি ফলক উন্মোচন করা হয়েছে। শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) সকালে শহরের আখড়াবাজারে শ্রী শ্রী শ্যামসুন্দর লক্ষ্মীনারায়ণ জিউর আখড়ার প্রধান ফটকের দেয়ালে অরবিন্দ ঠাকুরের স্মৃতি ফলক উন্মোচন করা হয়।

পরে আখড়া প্রাঙ্গণে জেলা প্রশাসক ও আখড়ার সভাপতি মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সিনিয়র আইনজীবী অশোক সরকারের সঞ্চালনায় শ্রী অরবিন্দ ঠাকুরের স্বদেশপ্রেম নিয়ে বিশদ আলোচনায় অংশ নেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. জিল্লুর রহমান, শ্রী অরবিন্দ ইনস্টিটিউট অব কালচার (কলকাতা-ভারত) সেন্টারের প্রধান শ্রী লেখা মজুমদার, ঢাকা সেন্টারের সম্পাদক অমিয় মুখার্জী, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট ভূপেন্দ্র ভৌমিক দোলন প্রমুখ।

এ সময় প্রয়াত কমরেড অজয় রায়ের স্ত্রী নারীনেত্রী জয়ন্তী রায়, অধ্যক্ষ রবীন্দ্রনাথ চৌধুরী, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি রিপন রায় লিপু, শ্যামসুন্দর জিউর আখড়ার সাধারণ সম্পাদক শুভংকর পাল অপু, হিন্দু ধর্মীয় নেতা মানিক রঞ্জন দেসহ শ্রী অরবিন্দ ইনস্টিটিউট অব কালচার (কলকাতা-ভারত) সেন্টারের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা বলেন, শ্রী অরবিন্দ বিশ্বমানব-ঐক্যের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে আজীবন লড়াই সংগ্রাম করেছেন। এরই ধারাবাহিকতায় তিনি বাংলাদেশের সিলেট, বরিশাল, পাবনাসহ বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করে বক্তৃতায় সাধারণ মানুষের কল্যাণে তাঁর স্বদেশভাবনা তুলে ধরেছেন।

কিশোরগঞ্জেও ১৯০৮ সালের এপ্রিল মাসে শহরের রথখোলায় একটি বক্তৃতা করেছিলেন। তিনি একটি ভাষণে পল্লী উন্নয়ন প্রসঙ্গে গ্রামে গ্রামে পল্লী সমিতি স্থাপনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য তুলে ধরে গ্রামীণ সমবায়ের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের অন্তরে দেশপ্রেমের বাণী পৌঁছে দেয়ার আজীবন চেষ্টা চালিয়েছেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর