কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভ্যান চালকের ছেলের বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিতে পাশে দাঁড়ালেন কিশোরগঞ্জের কৃতী সন্তান ডিসি মতিন


 আশরাফুল ইসলাম, গাইবান্ধা | ১০ নভেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৭:০১ | সারাদেশ 


গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের উত্তর শ্রীপুর সাতীনামারী গ্রামের ভ্যান চালক সাবালিয়াল মিয়ার ছেলে এম শহীদ মিয়া এ বছর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। কিন্তু অর্থের অভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি নিয়ে সংশয়ে ছিলেন শহীদ মিয়া। এ অবস্থায় অদম্য এই মেধাবীর বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির স্বপ্নপূরণে পাশে দাঁড়িয়েছেন কিশোরগঞ্জের কৃতী সন্তান গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন।

সূত্রমতে, জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের উত্তর শ্রীপুর সাতীনামারী গ্রামে সাবালিয়াল মিয়া ও সখিলা বেগমের ছেলে এম শহীদ মিয়া এই বছর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি  সুযোগ পেয়েছেন। তাঁর বাবা ভ্যান চালক এবং মা গৃহবধূ হওয়ায় তার পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভাল নয় পরিবারটি দরিদ্র।

মেধাবী ছাত্রের বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স ক্লাসে ভর্তির জন্য তাঁর আট হাজার টাকা প্রয়োজন। তার বাবা এই টাকার ব্যবস্থা করতে অক্ষম ছিলেন। এ কারণে তার ভর্তি সম্পূর্ণ অনিশ্চিত ছিল।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পেরে মানবিক গুণাবলীর অধিকারী জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন অদম্য মেধাবী শহীদ মিয়ার পাশে দাঁড়িয়েছেন। তিনি এ মেধাবী ছাত্রের হাতে ১০ হাজার টাকার চেক প্রদান করেন।

শহীদ মিয়া এই চেক নিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন এবং আন্তরিক হৃদয়ে ডিসি আবদুল মতিনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। মেধাবী ছাত্র শহীদ মিয়া জেলা প্রশাসকের দীর্ঘজীবন ও সুস্বাস্থ্যের জন্যও কামনা করেছেন।

অদম্য মেধাবী শহীদ মিয়া রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। শহীদ মিয়া ২০১৭ সালে কাসিম বাজার উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি এবং ২০১৯ সালে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ধুবনি কাঁচিবাড়ী কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেছেন।

জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন মেধাবী দরিদ্র ছাত্র ছাত্রীদের পাশে দাঁড়িয়ে ভবিষ্যতে তাদের জন্য আর্থিক সহায়তা অব্যাহত রাখার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

গাইবান্ধা জেলার জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. আবদুল মতিন কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুর ইউনিয়নের গজারিয়া গ্রামের গর্বিত সন্তান। ২০১৮ সালের ২৩ ডিসেম্বর গাইবান্ধা জেলার জেলা প্রশাসক (ডিসি) হিসেবে তিনি যোগদান করেন।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর