কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কিশোরগঞ্জ-তাড়াইল সড়কে সেতু ভেঙ্গে যানবাহন চলাচল বন্ধ


 স্টাফ রিপোর্টার | ৩০ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার, ৬:২৮ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জ-তাড়াইল সড়কে দুই উপজেলার সীমান্তবর্তী ঘোড়াউত্রা খালের ওপর নির্মিত একটি পাটনী সেতু ভেঙ্গে গেছে। প্রায় ৫৩ বছর আগে নির্মিত সেতুটির পশ্চিমাংশ ভেঙ্গে নিচে দেবে গেছে। গত ২৩শে অক্টোবর সেতুটি ভেঙ্গে যাওয়ার পর থেকে কিশোরগঞ্জ-তাড়াইল সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

সেতুটি দিয়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন হাজার হাজার মানুষ। সেতু ভেঙ্গে যাওয়ায় অন্তত তিন কিলোমিটার ঘুরপথে অন্য সড়ক দিয়ে কিশোরগঞ্জ সদরের সাথে তাড়াইল উপজেলার সড়ক যোগাযোগ রক্ষা করতে হচ্ছে।

স্থানীয়রা জানায়, গত ২৩ অক্টোবর বিকালে সেতুটির পশ্চিমাংশ ভেঙ্গে অন্তত দুই ফুট দেবে যায়। তখন এলাকার মানুষের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এরপর থেকে ব্রিকসপিলারটি ধীরে ধীরে আরও দেবে যাচ্ছে। বড় বড় ফাটল দেখা দিয়েছে বিভিন্ন জায়গায়। যে কোনো সময় সেতুটি ধসে নিচে পড়ে যেতে পারে।

খবর পেয়ে কিশোরগঞ্জের এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী একেএম আমিরুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার মাইজখাপন ইউনিয়নের বেত্রাটি মীরপাড়া গ্রামের বিল্লাল হোসেন মীর জানান, কিশোরগঞ্জ সদর ও তাড়াইল উপজেলাকে পৃথক করেছে ঘোড়াউত্রা খাল। সদরের বেত্রাটি মীরপাড়া এবং তাড়াইল উপজেলার তালজাঙ্গা ইউনিয়নের চরতালজাঙ্গা গ্রামের সীমানায় এই খালের ওপর প্রায় ৫৩ বছর আগে সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছিল। পরবর্তিতে সেতুটি সংস্কার করা হয়।

গত ২৩ অক্টোবর সদরের বেত্রাটি মীরপাড়া অংশের দিকে সেতুটির পুরনো ব্রিকসপিলার ভেঙ্গে গেলে সেতুটি নিচের দিকে দেবে যায়। ফলে এই সড়ক দিয়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

এলাকাবাসীর দাবি, এখানে জরুরী ভিত্তিতে একটি বেইলি ব্রিজ স্থাপন করে যানবাহন ও লোকজনের পারাপারের ব্যবস্থা করে দেওয়া উচিত। পরে ঝুঁকিপূর্ণ সেতুটি ভেঙে ফেলা হবে না নতুন সেতু নির্মাণ করা হবে তা নিয়ে ভাবতে পারে কর্তৃপক্ষ।

এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী একেএম আমিরুজ্জামান বলেন, বহু পুরোনো সেতুটি হঠাৎ দেবে যাওয়ায় আপাতত সেতুটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বিকল্প হিসেবে একটি সাঁকো তৈরি করে দেয়া হচ্ছে যেন রিকশা-অটোরিকশা চলাচলের পাশাপাশি জনসাধারণ চলাফেরা করতে পারেন। এছাড়া এ বিষয়ে দ্রুত একটি ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ঢাকায় যোগাযোগ করছি।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর