কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


কটিয়াদীতে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে ব্যবসায়ীকে হত্যা


 মো. রফিকুল হায়দার টিটু, স্টাফ রিপোর্টার, কটিয়াদী | ২৩ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার, ২:০৯ | কটিয়াদী 


কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে হাবিবুর রহমান (৩৫) নামে এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় হাবিবুর রহমানকে উদ্ধার করতে গিয়ে আরও ৩ জন আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত নিহত হাবিবুর রহমানের স্ত্রী শারমিন আক্তারকে ঢাকায় এবং তোফাচানকে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার (২৩ অক্টোবর) ভোরে উপজেলার করগাঁও ইউনিয়নের ভাট্টা গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটেছে। নিহত হাবিবুর রহমান ভাট্টা গ্রামের মৃত মতি মিয়ার ছেলে। তিনি ঢাকায় কাঁচামালের ব্যবসা করতেন।

জানা যায়, চাচাতো ভাই আল আমিন তার দলবল নিয়ে রাতের আঁধারে সিধ কেটে হাবিবুর রহমানের ঘরে ঢুকে। পরে তাকে ঘুমন্ত অবস্থায় এলোপাথারী কুপিয়ে মারাত্মক ভাবে জখম করে। এ ঘটনা দেখে তার স্ত্রী শারমিন আক্তার ডাক চিৎকার শুরু করলে দুর্বৃত্তরা তাকেও কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে।

এ সময় আশপাশের ঘর থেকে হাবিবুরকে উদ্ধার করতে এগিয়ে এলে বাইরে অবস্থানরত দুর্বৃত্তরা তোফা চান (৩০) ও জুনায়েদ (৫৫) নামের দুইজনকে কুপিয়ে জখম করে।

পরে স্থানীয় লোকজন হাবিবুর রহমানেক উদ্ধার করে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এছাড়া নিহতের স্ত্রী শারমিন আক্তারকে ঢাকায় এবং তোফাচানকে বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিন জানান, ৮-১০জনের একটি দল সিঁধ কেটে হাবিবুরের ঘরে প্রবেশ করে এবং এ সময় কয়েকজন বাইরে পাহাড়া দেয়।

করগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান শরাফত লস্কর পারভেজ জানান, পূর্ব বিরোধের জের ধরে এ ঘটনা ঘটতে পারে।

কটিয়াদী মডেল থানার সদ্য যোগদানকারী ওসি এম,এ জলিল বলেন, সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি ও আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর