কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভৈরবে এক লাখ মিটার জাল জব্দ, জরিমানা, জব্দ মাছ এতিমখানায়


 সোহেল সাশ্রু, ভৈরব | ১২ অক্টোবর ২০১৯, শনিবার, ৮:০৪ | ভৈরব 


মেঘনা নদীর ভৈরব মোহনায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এক লাখ মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করে পুড়ানো হয়েছে। এছাড়া সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কারেন্ট জাল ব্যবহার করে ইলিশসহ দেশীয় প্রজাতির শিকার করায় চার জেলেকে মোট ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি ৩৫ কেজি ইলিশসহ অন্যান্য মাছ জব্দ করে এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে।

শনিবার (১২ অক্টোবর) ভৈরব উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা এই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। উপজেলা সিনিয়র মৎস্য অফিসার মো. লতিফুর রহমান ও ভৈরব নৌ-থানা পুলিশ ভ্রাম্যমাণ আদালতকে সহযোগিতা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্র জানায়, মেঘনা নদীর ভৈরব মোহনায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করার সময় সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কারেন্ট জাল ব্যবহার করে ইলিশসহ দেশীয় প্রজাতির মাছ শিকার করায় চার জেলেকে আটক করা হয়। এছাড়া জেলেদের ব্যবহৃত এক লাখ মিটার কারেন্ট জাল ও ৩৫ কেজি ইলিশসহ অন্যান্য মাছ জব্দ করা হয়।

আটক চার জেলে হলো, মাহতাব মিয়া, মাসুম মিয়া, রিপন মিয়া ও আরশ মিয়া। পরে আটক চার জেলেকে পাঁচ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড প্রদান করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা  জানান, আইন অমান্য করে মেঘনা নদীতে কারেন্ট জাল ব্যবহার করে ইলিশসহ দেশীয়  বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ধরায় চার জেলে, এক লাখ মিটার কারেন্ট জাল ও ইলিশসহ ৩৫ কেজি মাছ আটক করা হয়। আটককৃতদের প্রত্যেককে ৫ হাজার করে মোট ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এছাড়া এক লাখ মিটার কারেন্ট জাল যার আনুমানিক বাজার মূল্য তিন লাখ টাকা পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে। অন্যদিকে জব্দকৃত মাছ বিভিন্ন এতিমখানায় বিতরণ করা হয়।

উল্লেখ্য, ৯ অক্টোবর থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশ ধরা, বিক্রি, মজুদ ও পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর