কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


পাকুন্দিয়ায় গৃহবধূর মর্মান্তিক মৃত্যু


 স্টাফ রিপোর্টার | ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ৭:০২ | পাকুন্দিয়া  


পাকুন্দিয়ায় অসহনীয় পেটের ব্যথায় অস্থির হয়ে ধুঁকতে ধুঁকতে ফাতেমা আক্তার (৫০) নামে এক গৃহবধূ মারা গেছেন। শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ৭টার দিকে পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার পর গৃহবধূকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

গৃহবধূ ফাতেমা আক্তার পাকুন্দিয়া উপজেলার চরফরাদী ইউনিয়নের হিজলিয়া গ্রামের মধু মিয়ার স্ত্রী। পুলিশ গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্র জানায়, গৃহবধূ ফাতেমা দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাতে তিনি পেটের ব্যথায় অস্থির হয়ে পড়েন। ক্রমশ পেট ফুলে ব্যথা বাড়তে থাকে তার।

এ পরিস্থিতিতে গৃহবধূ ফাতেমা কান্নাকাটি করতে থাকেন। এক পর্যায়ে স্বামী মধু মিয়া প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘরের বাইরে গেলে এই সুযোগে ফাতেমা ব্লেড দিয়ে নিজের পেট কাটার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন।

স্বামী মধু মিয়া ঘরে এসে গৃহবধূ ফাতেমার পেটে ব্লেডের একাধিক আঁচড় দেখে স্ত্রীকে জিজ্ঞাসা করে বিষয়টি জানতে পেরে তিরস্কার করেন। ব্যথার মাত্রা ক্রমশ বাড়তে থাকায় শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ৭টার দিকে ফাতেমা আক্তারকে স্বামী মধু মিয়া পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

কিন্তু পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. কাওসার জানান, ফাতেমা আক্তার আর নেই।

বিষয়টি গৃহবধূ ফাতেমার বোন ও স্বজনেরা জানতে পেরে হাসপাতালে ছুটে আসেন। এ সময় তারা গৃহবধূ ফাতেমাকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেন। গৃহবধূর স্বজনদের এই দাবির কারণে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

পাকুন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা পরিদর্শক (তদন্ত) এস এম শফিকুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন ধরে গৃহবধূ ফাতেমা অসুস্থ ছিলেন। এ পরিস্থিতিতে পেটে অসহনীয় ব্যথায় তার পেট ফুলে যায়।

প্রাথমিকভাবে অসুখের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন। এরপরও স্বজনদের মাঝে এ নিয়ে নানা মত ও সংশয় থাকায় ময়নাতদন্তের মাধ্যমে মৃত্যুর কারণ নির্ণয়ের জন্য লাশ কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর