কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


ভৈরবে ফ্লাট বাসায় তালা কেটে নগদ টাকা ও মালামাল চুরি


 সোহেল সাশ্রু, ভৈরব | ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার, ১২:৩৩ | ভৈরব 


ভৈরবে দিনে-দুপুরে একটি ফ্লাট বাসার তালা কেটে নগদ টাকা ও মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি করে নিয়ে গেছে সংঘবদ্ধ একটি চোরচক্র। শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টার দিকে ভৈরবপুর উত্তরপাড়ায় রফিকুল ইসলাম মহিলা কলেজ রোডের পূর্বপাশে ডাক্তার সাখাওয়াত হোসেনের বিল্ডিংয়ে নিচতলার ভাড়াটিয়া মৃত বাদল মিয়ার স্ত্রী নাজমা বেগমের বাসায় এ চুরির ঘটনা ঘটে। এসময় নগদ ২০ হাজার টাকা ও মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি হয় বলে জানা গেছে।

ভুক্তভোগি নাজমা বেগম জানান, ডাক্তার সাখাওয়াত হোসেনের বিল্ডিংয়ের নিচতলার ফ্লাটটি তিনি ভাড়া নিয়ে সেখানে কলেজ পড়ুয়া মেয়েকে নিয়ে বসবাস করে আসছেন। তাঁর দুই ছেলে ইটালী প্রবাসী। শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকালে বাসায় তালা দিয়ে তাঁর অসুস্থ্য মাকে দেখতে নারায়ণপুর যান তিনি। এছাড়া তাঁর মেয়ে তারিন আক্তার সকালেই কলেজে চলে যান।

দুপুর দুইটার দিকে তাঁর মেয়ে তারিন আক্তার কলেজ থেকে ফিরে দেখেন বাসার দরজা খোলা এবং দরজা লাগানো হেজবোলের আংটার কাঁটা অংশসহ তালাটি নিচে পড়ে আছে। এ সময় ভিতরে প্রবেশ করে তারিন দেখেন, দক্ষিণ দিকের রুমে খাটের উপর কয়েকটি ড্রয়ার ও ড্রয়ারের জিনিসপত্র এলোমেলো ভাবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে।

এ ঘটনা দেখে তারিন তাঁর মাকে ফোন করলে নাজমা বেগম বিকাল ৩টার দিকে বাসায় এসে দেখেন ড্রয়ারে রাখা নগদ ২০ হাজার টাকা ও কিছু মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি হয়ে গেছে। ফ্লাটের তালা কেটে এই চুরির ঘটনায় তিনি তাঁর মেয়েকে নিয়ে এখন আতংকে রয়েছেন। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দিবেন বলেও নাজমা বেগম জানান।

স্থানীয়রা জানান, ভৈরবপুর উত্তরপাড়া এলাকাসহ শহরের বিভিন্ন ফ্লাট বাসা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের তালা কেটে সর্বস্ব লুটে নিয়ে যাচ্ছে একটি সংঘবদ্ধ চোরচক্র। পুলিশ মাঝে মধ্যে চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তার করলেও অধরা রয়ে গেছে চক্রের মূলহোতারা। আর এজন্যই থামছে না চুরি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা। এসব চুরি ও ছিনতাইয়ের ঘটনায় আতংকিত সাধারণ পথচারী, ব্যবসায়ী ও স্থানীয় বাসিন্দারা।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর