কিশোরগঞ্জ নিউজ :: কিশোরগঞ্জকে জানার সুবর্ণ জানালা


গৌরাঙ্গবাজারের মিলন প্লাজায় অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি


 স্টাফ রিপোর্টার | ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৭:৩৫ | বিশেষ সংবাদ 


কিশোরগঞ্জ জেলা শহরের প্রাণকেন্দ্র গৌরাঙ্গবাজার মোড়ের বহুতল বাণিজ্যিক ভবন মিলন প্লাজায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকাল পৌনে ৮টার দিকে বহুতল এই বাণিজ্যিক ভবনটিতে অগ্নিকাণ্ড ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের চারটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে বেলা পৌনে ১২টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে মিলন প্লাজার দোতলায় অবস্থিত যমুনা ইলেক্ট্রনিক্স এর শোরুমের মালামাল এবং ভবনটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। যমুনা প্লাজা নামে যমুনা ইলেক্ট্রনিক্স এর শোরুমে রাখা ফ্রিজ-টিভিসহ ইলেক্ট্রনিক সামগ্রী ও প্লাস্টিক সামগ্রী পুড়ে ভয়াবহ ধোয়ার কুণ্ডলী চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে।

এ সময় আগুন নেভাতে গিয়ে ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার রাকিব উদ্দিন ভূঁইয়া (২৮) ও সিনিয়র ফায়ারম্যান নাসির উদ্দিন খন্দকার (৪২) এই দু’জন গুরুতর আহত হন। তাদেরকে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল পৌনে ৮টার দিকে মিলন প্লাজায় অবস্থিত যমুনা প্লাজা নামে যমুনা ইলেক্ট্রনিক্স এর শোরুম থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখেন পথচারীরা। এক পর্যায়ে ধোঁয়ার কুণ্ডলী বাড়তে থাকায় ৮টার কিছু পরে ফায়ার সার্ভিসকে বিষয়টি জানানো হয়। তখন ওই প্লাজায় অবস্থিত যমুনা প্লাজা ছাড়াও নিচতলার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ ছিল।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেন। কিন্তু যমুনা ইলেক্ট্রনিক্স এর শোরুমের ভেতরে রাখা মোটর সাইকেল, ফ্রিজ-টিভিসহ ইলেক্ট্রনিক সামগ্রী ও প্লাস্টিক সামগ্রী পুড়ে ভেতর থেকে প্রচণ্ড ধোঁয়া বের হওয়ায় আগুন নেভাতে গিয়ে হিমশিম খান ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। এক পর্যায়ে ভবনটির পশ্চিম পাশের দেয়াল কেটে এবং উত্তর দিকের গ্লাস ভেঙ্গে ফায়ার সার্ভিসের চারটি ইউনিট প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে বেলা পৌনে ১২টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হলেও প্রাথমিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি।

কিশোরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক মো. মনিরুজ্জামান জানান, বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে তারা ধারণা করছেন। তবে ভবনের দ্বিতীয় তলায় অবস্থিত ইলেক্ট্রনিক্স শোরুমের বাইরে আগুন ছড়াতে পারেনি। শোরুমে প্লাস্টিক, ফ্রিজ-টিভিসহ ইলেক্ট্রনিক সামগ্রী ছিল। আর আগুনে এসব পুড়ে পুরো ভবন ধোঁয়াচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। এতে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে তাদের সমস্যা হয়।




[মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ি নয়। মতামত একান্তই পাঠকের নিজস্ব। এর সকল দায়ভার বর্তায় মতামত প্রদানকারীর]

এ বিভাগের আরও খবর